Breaking News
Home / গ্রামগঞ্জ / যশোরের শার্শা উপজেলায় আখের বাম্পার ফলন, ক্রেতা না থাকায় লোকসানমুখি চাষি

যশোরের শার্শা উপজেলায় আখের বাম্পার ফলন, ক্রেতা না থাকায় লোকসানমুখি চাষি

যশোর ব্যুরো : যশোরের শার্শা উপজেলায় বেনাপোল পোর্ট থানাধীন পুটখালী এলাকা জুড়ে এবার শত বিঘা ছাড়িয়ে গেছে আখ চাষ। সেই সাথে আখ চাষীদের বাম্পার ফলন। কিন্তু ক্রেতা না থাকায় লোকসান গুনতে হতে পারে চাষীদের। আখ চাষের বিপর্যয় মুহূর্ত শার্শা কৃষি অধিদপ্তরের কোন অফিসার এগিয়ে আসেননি, অভিযোগ আখ চাষীদের।

শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বেনাপোলের বিভিন্ন এলাকায় আখ চাষীদের চাষ বিষয়ে খোঁজ খবর নিতে ও ফলন সম্পর্কে তথ্য অনুসন্ধানে গেলে আখ চাষী লাট্টু মোল্লা বলেন, আখ চাষ হলো ধীর গতিতে দীর্ঘ পরিশ্রম। এবার আখের ফলন গত বছরের তুলনায় অনেক ভালো। তবে তেমন একটা ক্রেতার ভিড় না থাকার কারণে ফলন ভাল হওয়ার পরও হয়তোবা লোকসান গুনতে হতে পারে এলাকার সকল আখ চাষীদের।

শার্শা কৃষি অভিদপ্তরের দিকে আঙুল তুলে কয়েকজন চাষী বলেন, অতিরিক্ত গরম ও একটানা রোদ্রে আখ বিভিন্ন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়। এবার প্রচন্ড গরম ও তাপদাহে তেমনি সমস্যার সম্মুখিন হয়েছিলাম আমরা যারা আখ চাষী আছি। আখ যখন ভাইরাসে আক্রান্ত এবং তা দিন দিন বেড়েই চলেছে তখন আমরা শার্শা কৃষি অভিদপ্তরে বারবার এ বিষয়ে অভিযোগ জানালেও তারা শুরু থেকে আমাদের কোন প্রকার সহযোগীতা এমনকি আখ ক্ষেতে পরিদর্শনও করেননি। যখন ভাইরাস মাত্রাধিক হারে বাড়তে থাকে তখন আবারও আমরা সেখানে অভিযোগ জানালে তারাপর তারা দায় কাটানোর মতো কোন রকম এসে চলে যান।

শার্শা কৃষি অফিসার সৌতম কুমার সিল বলেন, চাষিদের অভিযোগ সত্য নয়। আমাদের সার্বিক সহযোগিতা তাদের সাথে ছিল। আমি নিজেও সেখানে কয়েকবার গিয়ে তাদের চাষ বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছি। এমনকি কৃষি বিষয়ে আরও বেশী উপকৃত হতে পারে তার জন্য একটা মোবাইল নম্বরও দিয়েছি।

লিংক কম্পিউটার যশোর এর বিজ্ঞাপন

About বাংলা ভোর

সবার আগে আমরা

Check Also

মহেশপুরের পরানপুরে কলাগাছের সাথে শত্রুতা।

শামীম খাঁন, নিজস্ব প্রতিবেদক ।। ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার এস’বিকে ইউনিয়নের পরানপুর শফিয়ার রহমানের ১৯ শতক …