Breaking News
Home / বিবিধ / ধর্মীয় উগ্র মতবাদ প্রচার করতে না পেয়ে, দোসরদের নিয়ে মাদ্রাসায় তালা।

ধর্মীয় উগ্র মতবাদ প্রচার করতে না পেয়ে, দোসরদের নিয়ে মাদ্রাসায় তালা।

ওসমান গনি,  লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ-
লালমনির হাট জেলার, কালিগন্জ উপজেলায় ৫ নং চন্দ্রপুর ইউনিয়নে বালাপাড়া গ্রামে, ধর্মীয় উগ্র মতবাদ প্রচারে বাধাঁ দেওয়ায়,ক্ষিপ্ত হয়ে ওমর ফারুক উরফে (মানিক) তার দোসরদের নিয়ে মাদ্রাসায় তালা লাগিয়ে দেয়।

২রা ডিসেম্বর রোজ সোমবার,সকাল ৭ ঘটিকায়,লালমনিরহাটের কালিগন্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের উঃবালাপাড়া গ্রামের পানিখাওয়ার ঘাট নুরানি মাদ্রাসায় গিয়ে দেখা গেছে বিচিত্র কাজ কারবার,পাওয়া গিয়েছে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য।

সরেজমিন দেখাগেছে,মাদ্রাসার গেট তালাবদ্ধ থাকায়,শীতের সকালে কোমলমতি শিশুদেরকে নিয়ে খোলা আকাশের নিচে পাঠদান দিচ্ছেন এবং মক্তবের মাঠে অবিভাবক ও এলাকাবাসী সহ ৫০/৬০ জনের উপস্থিতি দেখা গেছে।

মাদ্রাসার গেটে তালা ও খোলা আকাশের নিচে কেন পাঠদান এ বিষয়ে জানতে চাইলে,মাদ্রাসার বর্তমান সভাপতি মোঃসিরাজুল ইসলাম,সহসভাপতি মোঃআব্দুল মোত্তালেব,সাধারণ সম্পাদক মোঃআসাদুল ইসলাম,সদস্য মোঃসাত্তার আলী,হাছান আলী, লালমিয়া জানান যে,,
আজ থেকে প্রায় ৬ মাস পুর্বে তৎকালীন মাদ্রাসা সেক্রেটারি মোঃআমির হোসেন ও মক্তবের শিক্ষক ওমর ফারুক উরফে মানিক তারা দুজনে ধর্মের ভুল ব্যখ্যা দিয়ে সাধারণ মানুষকে ভুল বুজিয়ে আকস্মিক মহিলা মাদ্রাসা গঠন করে এবং সমাজে নানা প্রকার অনিয়ম প্রতিষ্ঠা সহ অনুদানের নামে নীরব চাঁদাবাজির সিষ্টেম চালু করেন।

বর্তমান সভাপতি মোঃসিরাজুল ইসলাম বলেন যে,সম্প্রতি আমির হোসেন মারা যাওয়ায়, সমাজবাসীরা কমিটি ঢেলে সাজায় এবং আমাকে সভাপতি নির্বাচিত করে।
আমি সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর,উক্ত শিক্ষক মানিকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারীতার অভিযোগ আসে, যেমন,,

(১) মহিলাদের কুরআন শিক্ষার নামে ধর্মীয় উগ্রবাদ প্রচার ও বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে জনমত সৃষ্টি করা।
(২) চুরি করে মাদ্রাসার সোলার বিক্রি।
(৩) অনুদানের নামে নীরব চাঁদাবাজি।
(৪)সকল অনুদানের টাকা আত্মসাৎ।
(৫) হাফেজ না হয়েও নিজেকে কুরআনের হাফেজ বলে প্রচার করা,ইত্যাদি,
উক্ত অভিযোগ গুলো শুনার পর মাদ্রাসায় মিটিং আহ্বান করে অভিযোগ গুলো সুস্পষ্ট প্রমান হলে,মাদ্রাসা কমিটি তাকে মাদ্রাসা হতে বহিষ্কার করে এবং নতুন করে ঐ মক্তবের জন্য মোঃশাহজামাল(দরবেশ)কে শিক্ষক হিসাবে মনোনীত করে।
এরই জের ধরে,অদ্য ২রা ডিসেম্বর,সোমবার সকাল ৭ ঘটিকায়,উক্ত ধর্মীয় উগ্রমতবাদী শিক্ষক ওমর ফারুক উরফে(মানিক)ও তার দোসর(১)মোঃআবুল হোসেন(৭০) পিতা মৃত নিজাম উদ্দিন (২)জাকির হোসেন(৩০)পিতা মৃত আমির হোসেন,(৩)মোঃকমর উদ্দিন(৩০)পিতা মোকাদ্দেস আলী,(৫)মোঃহাসমত আলী(৭০)পিতা সমর উদ্দিন,(৬)মোঃআবু তালেব(২৪)পিতা আবুল হোসেন,সম্মিলিত ভাবে মাদ্রাসায় এসে তালা লাগিয়ে দিয়ে হুমকি প্রদান করে।

এ ব্যাপারে জানতে অভিযুক্ত ব্যক্তি ওমর ফারুক উরফে(মানিক)কের সাথে কথা বলার জন্য তার মোবাইলে একাধিক বার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেন নি।

এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিলো৷

লিংক কম্পিউটার যশোর এর বিজ্ঞাপন

About বাংলা ভোর

সবার আগে আমরা

Check Also

মহেশপুর উপজেলা আজমপুর ইউনিয়নের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত।

আশরাফুল আলম, বিশেষ প্রতিনিধিঃ  অদ্য মহেশপুরের আজমপুর ইউনিয়নের ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *